Mon. May 16th, 2022
0 0
Read Time:2 Minute, 37 Second

সীমান্তবর্তী গ্রাম

লড়াই ২৪ : করোনাকালে দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকার পর অবশেষে প্রায় দু’বছর পর বিদ্যালয়ে শুরু হয়েছে পঠন-পাঠন। কিন্তু এই দু’বছরে লকডাউনের জেরে একাধিক মানুষ কর্মহীন হয়ে পড়ায় সংসার চালাতেই হিমশিম খাচ্ছেন অভিভাবকরা।

ফলে নিজের সন্তানদের সঠিকভাবে পড়াশোনা চালাবেন কি করে এই নিয়ে চিন্তা ছিল দীর্ঘদিনের। সেই সমস্যার সমাধানে অভিনব প্রয়াস দেখা গেল সীমান্তবর্তী এলাকায়।

বসিরহাট মহকুমার বসিরহাট ১নং ব্লকের ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী গাছা-আখারপুর, সংগ্রামপুর-শিবহাটী ও ইটিন্ডা-পানিতর গ্রাম পঞ্চায়েতের প্রায় ৩০০ ছাত্র-ছাত্রীদেরকে পড়াশোনার মূল স্রোতের টিকিয়ে রাখতে তাদের হাতে বিনামূল্যে তুলে দেওয়া হল পাঠ্যপুস্তক ও পড়াশোনার একাধিক সামগ্রী। স্থানীয় সমাজসেবী বারিক বিশ্বাস ও বসিরহাট ১নং পঞ্চায়েত সমিতির পূর্তের কর্মাধ্যক্ষ শফিকুল দফাদারের উদ্যোগে এই বই খাতা পেয়ে যথেষ্ট খুশি হওয়া সীমান্তের কচিকাঁচাদের মধ্যে। বিগত দিনগুলিতে দেখা গিয়েছে এই সীমান্তবর্তী এলাকা থেকে শুধুমাত্র অর্থের অভাবে বহু ছাত্রছাত্রীকে তাদের পড়াশোনা ছেড়ে চলে যেতে হয়েছে অন্য কাজে , তাই তারা যাতে পড়াশোনা করে সমাজকে সঠিক ভাবে গড়তে পারেন তার জন্য এই পদক্ষেপ বলে জানান উদ্যোক্তারা।

সীমান্তবর্তী এলাকায় বেশিরভাগ অভিভাবক ভাগ চাষী, কেউ ইঞ্জিন ভ্যান চালান আবার কেউ লোকের বাড়িতে কাজ করে তাদের সংসার চালিয়ে ছেলেমেয়ের পড়াশোনার টেনে যাওয়া যথেষ্টই সমস্যা ছিল। তাই এই ধরনের উদ্যোগে খুশি ভারত-বাংলাদেশ সীমান্তবর্তী এলাকার মানুষরাও।

সীমান্তবর্তী গ্রাম

Happy
Happy
0 %
Sad
Sad
0 %
Excited
Excited
0 %
Sleepy
Sleepy
0 %
Angry
Angry
0 %
Surprise
Surprise
0 %
শেয়ার করে ভারতীয় হওয়ার গর্ব করুন

Average Rating

5 Star
0%
4 Star
0%
3 Star
0%
2 Star
0%
1 Star
0%

আপনার মতামত জানান

%d bloggers like this: