অ্যালোভেরার উপকারিতা: শীতে ঠোঁট বা গোড়ালি ফাটবে না, এই ৫টি বড় সমস্যা থেকে মুক্তি পাবেন; ঘৃতকুমারী সম্পর্কিত এই বিশেষ ব্যবস্থাগুলি গ্রহণ করুন

Loading

অ্যালোভেরা কীভাবে ব্যবহার করবেন: শীতকালে শরীরের ত্বকের শুষ্কতা এবং হিল ও ঠোঁট ফাটা স্বাভাবিক। আপনিও যদি এই সমস্যায় ভুগছেন, তাহলে আজ আমরা আপনাকে অ্যালোভেরার ৫টি বিশেষ ব্যবস্থার কথা জানাচ্ছি। এই ব্যবস্থাগুলি ব্যবহার করে আপনি শীতকালে আগের মতোই ফিট থাকতে পারবেন।

 

শীতে অ্যালোভেরার উপকারিতা: শীত শুরু হয়েছে এবং এখন ধীরে ধীরে তার শিখরের দিকে যাচ্ছে। শীতকালে প্রবাহিত ঠান্ডা বাতাস আমাদের শরীর থেকে আর্দ্রতা টেনে নিয়ে শুষ্ক করে তোলে। এ কারণে আমাদের ঠোঁট ফাটা ও শুষ্ক চুলের সমস্যায় পড়তে হয়। আপনার এই ধরনের সমস্যা যাতে না হয়, তাই আজ আমরা আপনাকে অ্যালোভেরার উপকারিতার ৫টি বিশেষ প্রতিকার বলছি, যেগুলো অবলম্বন করে আপনি এই শীতেও আপনার শরীরকে আগের মতোই ফিট রাখতে পারবেন।

https://news.google.com/publications/CAAqBwgKMJ-knQswsK61Aw?hl=en-IN&gl=IN&ceid=IN:en

 

শীতে অ্যালোভেরার উপকারিতা

 

ফাটা গোড়ালিতে আরাম পান

 

শীতকালে যদি আপনার হিল ফাটতে থাকে, তাহলে অ্যালোভেরার উপকারিতা আপনার জন্য উপকারী হতে পারে। আসলে, অ্যালোভেরার অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল বৈশিষ্ট্য রয়েছে, যা গোড়ালি ফাটা রোধ করতে সাহায্য করে। এটি ব্যবহার করতে অ্যালোভেরার মধ্যে লেবুর রস মিশিয়ে ফাটা গোড়ালিতে মিশিয়ে নিন। এতে করে গোড়ালির ফাটল বন্ধ হয় এবং কোমলতাও আসে।

 

ফাটা ঠোঁটের জন্য কার্যকর

 

শীতকালে ঠোঁট ফাটা একটি সাধারণ সমস্যা। কারোর কম আবার কারো ঠোঁট বেশি ফাটা। এ থেকে বাঁচতে রাতে ঘুমানোর সময় ঠোঁটে অ্যালোভেরা জেল লাগানো শুরু করুন। এই প্রতিকারটি করলে আপনার ঠোঁটের আর্দ্রতা বজায় থাকবে এবং শুষ্কতার কারণে ঠোঁট ফাটবে না।

 

আঁশযুক্ত খুশকিতে অ্যালোভেরা

 

শীতকালে মাথায় খুশকির সমস্যায় পড়তে হয় সবাইকে। এই কারণে, অনেকে হীনমন্যতারও শিকার হয় এবং বাইরে বের হতে সংকোচ করতে শুরু করে। অ্যালোভেরার উপকারিতা আপনাকে এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে সাহায্য করতে পারে। ঘৃতকুমারী পাতা পিষে একটি পেস্ট তৈরি করুন এবং তারপর এটি মাথার ত্বকে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এর পর হালকা গরম পানি দিয়ে মাথা ধুয়ে ফেলুন। আপনার মাথার খুশকি দূর হবে।

 

 

শুষ্ক চুলেও এটি উপকারী

 

শীত শুরু হলে ঠান্ডা বাতাসের কারণে চুল শুকিয়ে যাওয়া স্বাভাবিক। এমন পরিস্থিতিতে আপনার অ্যালোভেরার উপকারিতা ট্রাই করা উচিত। আসলে অ্যালোভেরায় ভিটামিন-এ, সি এবং ই প্রচুর পরিমাণে পাওয়া যায়। যার কারণে মাথার চুল নরম ও আর্দ্র থাকে। এটি ব্যবহার করতে, আপনার চুলে অ্যালোভেরা জেল লাগান। এতে করে আপনার চুল আগের মতই সতেজ থাকবে।

 

শুষ্ক ত্বকের জন্য অ্যালোভেরা

 

ঠান্ডার দিনে মানুষের শরীরে চুলকানি বেশি হয়। এর কারণ হচ্ছে বাইরের বাতাসের কারণে ত্বকের বাইরের স্তর শুষ্ক ও শুষ্ক হয়ে যায়। এই কারণে, আপনার শরীরের খোলা অংশে চুলকানি শুরু হয়। এই সমস্যা মোকাবেলা করতে, শীতকালে হাত, পা, হিল এবং অন্যান্য অংশে অ্যালো ভেরা জেল (অ্যালো ভেরা উপকারিতা) লাগাতে ভুলবেন না। এই প্রতিকারে ত্বকের আর্দ্রতা বাড়ে এবং চুলকানিও হয় না।

Author

Share Please

Make your comment