আকাশ ছোঁয়া দাম লংকার, বাঙালির হেঁসেলে ঝালের আগুন

0
59

কলকাতা: আমফান আর লকডাউনের কারণে বাজারে সবজির দাম বাড়তেই থাকছে। আলুর দাম বাড়তে থাকায় বাঙালির হেঁসেলের বেহাল দশা। এবার লংকার দামও হল আকাশ ছোঁয়া। গত সপ্তাহেও ১০০-১২০ টাকায় বিক্রি হয়েছে কেজি প্রতি কাঁচা লঙ্কা। সোমবার কলকাতার বাজারে সেই লঙ্কাই বিক্রি হয়েছে ২০০ থেকে ৩০০ টাকা কেজি দরে।

শুধুমাত্র খুচরো বাজার নয় কোলে মার্কেটের পাইকারি লঙ্কার বাজারেও অগ্নিমূল্য।‌ ১৭ জুলাই ৪০-৫০ টাকা কেজি প্রতি পাইকারি বিক্রি হয়েছে লঙ্কা। সেই লঙ্কাই সোমবারের বাজারে বিক্রি হয়েছে ১২০-১৪০ টাকা কেজি দরে।

লঙ্কার বাজারে কেন এই অগ্নিমূল্য?? কোলে মার্কেটের জনসংযোগ আধিকারিক কমল কুমার দে জানান, শুধু লঙ্কা নয়, আমদানি করা হচ্ছে এমন সবজি, টমেটো, ক্যাপসিকাম, বিনস সহ একাধিক সবজির দাম বাড়ছে। আগামী দিনে আরও বাড়বে।

প্রতি বছরই জুলাই থেকে সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত কাঁচা লঙ্কার দাম ঊর্ধ্বমুখী থাকে। বর্ষার সময় এবং গরমে বাংলায় লঙ্কার উৎপাদন কমে যায়। নির্ভর করতে হয় ইউপি, বিহার ও ঝাড়খণ্ডের লঙ্কার ওপর। সেই নির্ভরতা এই বছর অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে আমফানের কারণে। দক্ষিণ ২৪ পরগনার কাকদ্বীপ, ভাঙ্গড়, ক্যানিং উত্তর ২৪ পরগনার বসিরহাটে লঙ্কার জমি বেশ ক্ষতি হয়েছে আমফানের জন্য।

লকডাউনের কারণে জেলার মান্ডি থেকে গাড়ি করে লঙ্কা পৌঁছে দিতে হচ্ছে কলকাতায়। অন্য সময় অল্প লঙ্কা হলেও ট্রেনে করে কৃষকরা নিয়ে যেত শিয়ালদায়। এখন অনেক কৃষকের লঙ্কা জড়ো করে গাড়ি করে আনতে হচ্ছে। একসঙ্গে কয়েক টন লঙ্কা হলে তবেই গাড়ি করে আনা লাভজনক। এর ফলে জেলার মান্ডিতে যেটুকু লঙ্কা রয়েছে সেটাও কলকাতায় পৌঁছাচ্ছে না।

সাধারণত কলকাতায় দুই ২৪ পরগনা বা নদিয়া, মুর্শিদাবাদ থেকে প্রচুর লঙ্কা আসে কলকাতার বাজারে। হলদিবাড়ি থেকেও লঙ্কা আসে। এবার উত্তর বঙ্গে বর্ষা হওয়ায় হলদিবাড়ি লঙ্কা একেবারেই আসছে না। এই সব কারণের জন্য চাহিদা অনুযায়ী যোগান না থাকায় লঙ্কার দাম বেড়েছে।

পাইকারি থেকে খুচরা বাজারে লঙ্কার দামের পার্থক্য বরাবরই থাকে। কারণ খুচরো লঙ্কা ২৫ বা ৫০ অথবা ১০০ গ্রাম বিক্রি বেশি হয়। পাইকারি বাজার থেকে খুচরা বাজারে বিক্রির মধ্যে লঙ্কা শুকিয়ে ওজন কমে যায়। এর ফলে পাইকারি বাজারের সঙ্গে খুচরা বাজারের লঙ্কার দামের তারতম্য বরাবরই থাকে।

১৭ জুলাই কোলে মার্কেটে ৪০ থেকে ৫০ টাকা কেজি প্রতি পাইকারি লঙ্কা বিক্রি হয়েছে। সেই লঙ্কার বাজার রবিবার কোলে মার্কেটে পাইকারি বাজার দর গিয়েছে ১০০ থেকে ১২০ টাকা কিলো। গত সপ্তাহে খুচরো বাজারে ৮০ থেকে ১০০ টাকা লঙ্কা বিক্রি হয়েছে। সোমবার কলকাতায় সেই লঙ্কার বাজার দর ছিল ১৮০ থেকে ২৫০ টাকা।

শেয়ার করে ভারতীয় হওয়ার গর্ব করুন

আপনার মতামত জানান