High Cholesterol Control Herbal Food: পাঁচ ভেষজ ওষুধেই মাত হবে হাই কোলেস্টেরল, তালিকা দেখে নিন

WhatsApp Channel Join Now
Telegram Channel Join Now
Instagram Channel Follow Now

High Cholesterol Control Herbal Food: কোলেস্টেরল শরীরে উপস্থিত একটি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। এটির স্তর বজায় রাখা প্রয়োজন, কারণ এটির স্তর বৃদ্ধি করে, আপনাকে অনেক স্বাস্থ্য সমস্যার সম্মুখীন হতে হতে পারে। লিভার শরীরে মোমের মতো পদার্থ তৈরি করে এবং রক্তের মাধ্যমে পুরো শরীরে পৌঁছায়, এই মোমের মতো পদার্থকে কোলেস্টেরল নামে চেনেন। কোলেস্টেরল শরীরের নতুন কোষ তৈরির জন্য একটি অপরিহার্য উপাদান। কিন্তু, খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা অর্থাৎ এলডিএল মাত্রা বৃদ্ধি স্ট্রোক এবং হার্ট সম্পর্কিত গুরুতর রোগের ঝুঁকিও বাড়িয়ে দিতে পারে। এমন পরিস্থিতিতে উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সঠিক খাদ্য, নিয়মিত ব্যায়াম এবং কিছু উপকারী ভেষজ খেতে পারেন। আজ আমরা আপনাদের জন্য এমনই কিছু ভেষজ নিয়ে এসেছি। আসুন জেনে নিই

 

উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে সহায়ক ভেষজ –

https://news.google.com/publications/CAAqBwgKMJ-knQswsK61Aw?hl=en-IN&gl=IN&ceid=IN:en

 

তুলসী –

 

মেডিকেল নিউজ টুডে ডট কমমতে তুলসী গাছ সব জায়গায় সহজেই পাওয়া যায়। তুলসী সাধারণত শক্ত চা বা ক্বাথ তৈরিতে ব্যবহৃত হয়। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত তুলসী খেলে উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখা যায়।

 

মেথি বীজ এবং মেথি পাতা –

 

অনেক স্বাস্থ্য গবেষণার পরে, বিশেষজ্ঞরা বিশ্বাস করেন যে মেথির ব্যবহার উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সক্ষম। এর জন্য আপনি মেথি বীজ এবং মেথি পাতা উভয়ই ব্যবহার করতে পারেন। মেথি খাওয়া কোলেস্টেরলের মাত্রা বজায় রাখতে বিশেষ করে উচ্চ রক্তে শর্করার মাত্রার রোগীদের ক্ষেত্রে কার্যকর প্রমাণিত হতে পারে।

 

রোজমেরি –

 

রোজমেরি খেলে উচ্চ কোলেস্টেরলের সমস্যা দূর করা যায়। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, নিয়মিত 2 বা 5 গ্রাম রোজমেরি পাউডার সেবন করলে উচ্চ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমানো যায়। কার্ডিওভাসকুলার রোগ এবং অন্যান্য দীর্ঘস্থায়ী রোগের ঝুঁকিও রোজমেরি খাওয়ার মাধ্যমে হ্রাস করা যায়।

 

হলুদ –

 

ভারতের সমস্ত বাড়িতে হলুদ ব্যবহার করা হয়, যা খাবারের স্বাদ বাড়ানোর পাশাপাশি বিস্ময়কর ঔষধি গুণে পরিপূর্ণ। হলুদে উপস্থিত কারকিউমিন কোলেস্টেরলের মাত্রাকে অনেকাংশে উন্নত করে হার্ট সংক্রান্ত সমস্যার ঝুঁকি কমাতে পারে।

 

আদা-

 

রান্নার জন্য আদা বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্নভাবে ব্যবহার করা হয়। অন্যদিকে, স্বাস্থ্য সমস্যার ওষুধ হিসেবেও আদা ব্যবহার করা হয়। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের মতে, প্রতিদিন নিয়মিত 2 গ্রাম আদা খেলে ট্রাইগ্লিসারাইড এবং এলডিএল কোলেস্টেরল উভয়ের মাত্রা কমানো যায়

Author

এই খবরটা তাঁর সঙ্গে শেয়ার করুন, যার এটা জানা দরকার

Make your comment