অভিনব উদ্যোগ, এবার প্লাস্টিক বর্জ্য দিলেই ব্যাংক থেকে মিলবে মাস্ক, স্যানিটাইজার

0
27

অভিনব উদ্যোগ, এবার প্লাস্টিক বর্জ্য দিলেই ব্যাংক থেকে মিলবে মাস্ক, স্যানিটাইজার

বর্ধমান: টাকা আদানপ্রদানই যে ব্যাংকের মূলত কাজ তা সকলের জানা। কিন্তু ফেলে দেওয়া প্লাস্টিকের সামগ্রী কিংবা গাছের চারার বিনিময় ব্যাংক থেকে মাস্ক এবং স্যানিটাইজার পাওয়ার কথা শুনেছেন কি কেউ কখনও? কি শোনেননি তাই তো?
করোনা পরিস্থিতিতে এমনই অভিনব ব্যাংক তৈরি করলেন পূর্ব বর্ধমানের মেমারির পাল্লারোড পল্লিমঙ্গল সমিতির সদস্যরা।এক বাক্স মাস্ক এবং এক লিটার স্যানিটাইজার পেতে ঠিক কী করতে হবে আপনাকে?
ওই অভিনব ব্যাংকে আসার সময় আপনাকে সঙ্গে করে ৫ কেজি প্লাস্টিক বর্জ্য আনতে হবে। তা জমা দিলেই মিলবে স্যানিটাইজার ও মাস্ক। বর্জ্য প্লাস্টিক না থাকলেও চিন্তা নেই। সঙ্গে করে পাঁচটি গাছের চারা নিয়ে গিয়ে জমা দিলেই হাতে হাতে মিলবে এক লিটার স্যানিটাইজার ও এক বাক্স মাস্ক।

বেশ কয়েকদিন ধরে এই কাজ চলছে। প্রথম দিন থেকেই মিলছে সাড়া। কিন্তু কেন এমন উদ্যোগ নিল ক্লাব কর্তৃপক্ষ? সংস্থার সাধারণ সম্পাদক সন্দীপন সরকার বলেন, “করোনা পরিস্থিতিতে মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার অপরিহার্য। তা সত্ত্বেও অনেকেই এই পরিস্থিতিতে মাস্ক ও স্যানিটাইজারের গুরুত্ব বুঝতে পারছেন।

আবার কারও সামর্থ্য হচ্ছে না এত টাকা খরচ করে মাস্ক ও স্যানিটাইজার কেনার। তাঁদের কথা ভেবেই এই ব্যাংক তৈরি করা হয়েছে।” এছাড়াও তিনি বলেন, “আমরা পরিবেশকে সুরক্ষিত রাখার চেষ্টায় প্লাস্টিক বর্জ্য সংগ্রহ করছি।”

এই ব্যাংকের মাধ্যমে প্রতিদিন ১০০ জনের হাতে স্যানিটাইজার ও মাস্ক তুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। একজন ব্যক্তি মাসে একবারই এই সুবিধা নিতে পারবেন।

প্লাস্টিক বর্জ্য থেকে ইট তৈরি করে থাকে এই সংস্থা। প্লাস্টিক বর্জ্য সেই কাজে লাগানো হবে। আর গাছ এলাকার বিভিন্ন রাস্তার ধারে রোপণ করবেন তাঁরা। ক্লাব কর্তৃপক্ষের এই উদ্যোগ প্রশংসা কুড়িয়েছে সকলের থেকে।

শেয়ার করে ভারতীয় হওয়ার গর্ব করুন

আপনার মতামত জানান