কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বাঘের মুখে মৎস্যজীবি

0
55

কাঁকড়া ধরতে গিয়ে বাঘের মুখে মৎস্যজীবি

সুন্দরবন: বাঘের আক্রমণে প্রাণ হারানো যেন নিত্য দিনের ঘটনা হয়ে গিয়েছে সুন্দরবন ও তার সংলগ্ন এলাকার মৎস্যজীবীদের। ফের বাঘের আক্রমণে নিহত হলেন এক মৎস্যজীবী। কিছুদিন আগে কাঁকড়া ধরতে গিয়ে এক মৎস্যজীবী বাঘের কবলে পড়ে প্রাণ হারিয়েছিলেন। এবারও সেই একই ঘটনা ঘটল।

জানা গিয়েছে, নিহত মৎস্যজীবীর নাম যামিনী মিস্ত্রি, বয়স ৫২ বছর। ঘটনাটি ঘটেছে সুন্দরবনের পঞ্চমুখানির জঙ্গলে। যামিনী মিস্ত্রির বাড়ি সুন্দরবন কোস্টাল থানার লাহিরিপুর এলাকায়।

শুক্রবার সকালে কাঁকড়া ধরতে গিয়েছিলেন যামিনীবাবু সহ ৩ জন মৎস্যজীবী। জঙ্গলে প্রবেশ করার পরই তাঁদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে বাঘ। আচমকা বাঘের হানায় মৃত্যু হয় যামিনীবাবুর। তবে, তাঁর সঙ্গীদের কোনও ক্ষতি হয়নি। শুক্রবার দুপুর অবধি যামিনীবাবুর দেহটি উদ্ধার করতে পারেননি সঙ্গীরা।

বিষয়টি বনদপ্তর এবং সুন্দরবন কোস্টাল থানাকে জানানো হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে বনদপ্তর। মৃতদেহের খোঁজও চলছে। তাঁরা অনুমতি ছাড়া জঙ্গলে গিয়েছিলেন কি না, তাও জানার চেষ্টা চলছে।

তবে, এই ঘটনা নতুন নয়। গত মাসের শেষের দিকেই কাঁকড়া ধরতে গিয়ে এক মৎস্যজীবীকে বাঘে টেনে নিয়ে যাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

সেবার ৩ জন মৎস্যজীবী দল বেঁধে পীরখালির জঙ্গলে যান কাঁকড়া ধরতে। আর তখনই মানোয়ার মণ্ডল নামে বছর পঁয়ষট্টির এক মৎস্যজীবীর উপর বাঘ হামলা চালায়। বাঘ নৌকা থেকে ওই মৎস্যজীবীকে টেনে নিয়ে যায়।

প্রায় চোখের সামনেই বাঘের হামলায় প্রাণহানি হয় মৎস্যজীবীর। তবে, দেহটি উদ্ধার করতে পারেননি সঙ্গীরা। বাঘের হামলার সময় নৌকায় ছিলে আরও দুই সঙ্গী। তবে তাঁরাও কোনওভাবেই মৎস্যজীবীকে বাঁচাতে পারেননি।

শেয়ার করে ভারতীয় হওয়ার গর্ব করুন

আপনার মতামত জানান