ভারতেরই এক গ্রামে দেওরদের বিয়ে করতে হয় বউকে, চমকে যাওয়ার তথ্য

Loading

হিমাচল প্রদেশ: ভারতেই এমন অঞ্চল রয়েছে, যেখানে আজও জীবিত রয়েছেন ‘দ্রৌপদী’রা! সেখানে পলিঅ্যান্ড্রিই হল সমাজের রীতি এবং সেই রীতি পালন করতে ঘটা করে এক তরুণীর সঙ্গে একই পরিবারের সমস্ত ভাইদের বিয়ে দেওয়া হয়! শুনে চমকে গেলেন তো ?

হিমাচল প্রদেশের কিনৌর। কিনৌর ইন্দো-তিব্বতের সীমানার কাছে একটি জেলা। যে পলিঅ্যান্ড্রি বা মহিলাদের বহুবিবাহের কথা বলা হচ্ছে তা চালু রয়েছে এখানেই। সেখানে রয়েছেন আজকের দিনের দ্রৌপদীরা।মহাভারত অনুসারে, ১৩ বছরের জন্য রাজ্য থেকে নির্বাসিত হয়েছিলেন পাণ্ডবরা। স্থানীয়দের বিশ্বাস, তাঁরা নাকি তখন এই কিনৌরেই লুকিয়ে ছিলেন। সেই থেকেই নাকি এই অঞ্চলে মহিলাদের বহু বিবাহের প্রচলন।

https://news.google.com/publications/CAAqBwgKMJ-knQswsK61Aw?hl=en-IN&gl=IN&ceid=IN:en

কিনৌরে একটি পরিবারে বিয়ে হয়ে আসা তরুণীকে একই সঙ্গে তাঁর স্বামীর অন্য ভাইদেরও বিয়ে করতে হয়। বিয়ে করে আসার পর যতগুলো সন্তানের জন্ম তিনি দেবেন, তাদের প্রকৃত বাবার পরিচয়ের জন্য পুরো পরিবার ওই তরুণীর কথাতেই ভরসা রাখে। তবে প্রকৃত বাবা যিনিই হন না কেন, প্রতিটা সন্তান বড়ভাইকেই বাবা সম্বোধন করবে এবং বাকিদের কাকা। রীতি এমনটাই।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই রীতি আত্মস্থ করার পিছনে প্রচীন কিনৌরদের আর্থ-সামাজিক পরিস্থিতি একটা বড় কারণ।পাহাড়ি, দুর্গম এলাকা হওয়ায় কিনৌরের আর্থিক অবস্থা একেবারেই ভাল ছিল না। প্রতিটা পরিবারেরই সম্বল ছিল নামমাত্র জমি। তা এতটাই কম ছিল, যে ভাইদের মধ্যে পরবর্তীকালে ভাগাভাগি হলে সে ভাগের জমি থেকে যা আয় হবে তাতে সংসার চালানো কার্যত অসম্ভব। ছেলেদের বিয়ের পর জমি যাতে ভাগ না হয় সেই চিন্তাভাবনা থেকেই ‘দ্রৌপদী’ প্রথার প্রচলন এই অঞ্চলে।

Author

Share Please

Make your comment