লাদাখ-চিন সীমান্তে শহীদ বাঙালী জওয়ান

Loading

বীরভূম: লাদাখ-চিন সীমান্তে সেনাদের মধ্যে চলতে থাকা সংঘাত সোমবার রাতে আরও উত্তপ্ত হয়ে ওঠে। চিনা সেনা লাদাখে সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন করে। লাদাখের গালওয়ান ভ্যালিতে ভারত এবং চিনের সেনাবাহিনী মুখোমুখি হয়। চিনের সেনাবাহিনীর তরফে হামলা চালানো হয়।

সংঘর্ষের জেরে বাঙালি জওয়ানের মৃত্যু। জানা গিয়েছে, মৃত জওয়ানের নাম রাজেশ ওরাং, বাড়ি বীরভূমের মহম্মদবাজার থানা এলাকার বেলগড়িয়া গ্রামে। ৫ বছর আগে ২০১৫ সালে তিনি সেনাবাহিনীতে যোগ দিয়েছিলেন বলে জানা গিয়েছে। লাদাখে কর্মরত ছিলেন তিনি। মৃত জওয়ানের পরিবারের দাবি, চিনকে যোগ্য জবাব দিক ভারত।

https://news.google.com/publications/CAAqBwgKMJ-knQswsK61Aw?hl=en-IN&gl=IN&ceid=IN:en

বন্ধু ও পরিবারের দাবি তাদের ছেলে শহীদ হলেও দেশ রক্ষা করার জন্য তাঁরা গর্বিত। জওয়ানের পরিবার সূত্রে জানা গিয়েছে , মঙ্গলবার বিকেলে রাজেশ ওরাং-এর মৃত্যুর খবর ফোন মারফত তাঁর বাড়িতে জানানো হয় সেনার তরফে। দেশের জন্য প্রান দিয়েছে ছেলে, গর্বিত গোটা গ্রাম সহ রাজেশের পরিবার।

রাজেশের মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়। ট্যুইট করে তিনি রাজেশ ওরাং-এর পরিবারের প্রতি গভীর শোক জ্ঞাপন করেছেন। বুধবার সকাল থেকেই রাজেশের বাড়ির সামনে ভিড় জমিয়েছেন গ্রামবাসীরা। গ্রামের বাসিন্দারা বিশ্বাসই করতে পারছেন না রাজেশ আর নেই।

জানা গিয়েছে, সরস্বতী পুজোর সময় বাড়িতে ফিরেছিলেন রাজেশ। তাঁর বিয়ের সম্বন্ধ দেখা চলছিল। রাজেশ এসে ফাইনাল করলেই সেই বিয়ের দিনক্ষণ চূড়ান্ত হত। কিন্তু মঙ্গলবার হঠাৎ করে আর্মি অফিস থেকে আসা ফোনে সব শেষ। রাজেশ শর্মা, মমতা ওরাং এবং তাঁর বোন শকুক্তলা ওরাং-এর প্রতিক্রিয়া, দাদা সহ অন্যান্য জওয়ানদের মৃত্যুর যোগ্য জবাব দিক ভারত।

Author

Share Please

Make your comment

%d bloggers like this: