পাবজি খেলার নেশায় ১৬ লাখ টাকা খরচ ছেলের, শিক্ষা দিতে স্কুটার সারাইয়ে দোকানে কাজে পাঠালেন বাবা

0
67

পাবজি খেলার নেশায় ১৬ লাখ টাকা খরচ ছেলের, শিক্ষা দিতে স্কুটার সারাইয়ে দোকানে কাজে পাঠালেন বাবা

পাঞ্জাব: আজকাল কার দিনে খুবই জনপ্রিয় একটি খেলা পাবজি। ছোট থেকে বড় সবাই মেতে আছে এই গেমে। তবে, এতই খেলার নেশা যে, বাবার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১৬ লাখ টাকা খরচ করেছিল ছেলে। আর তাই উচিত শিক্ষা দিতে ছেলেকে স্কুটার সারানোর দোকানে কাজ করতে পাঠিয়ে দিয়েছেন বাবা।

এই ঘটনার পঞ্জাবের খারার জেলার। অনলাইন ক্লাস করার ছুতোয় বাবার ফোন নিয়েছিল ১৭ বছরের ওই ছেলে। তারপর কোনও ভাবে জেনে ফেলেছিল বাবার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট ডিটেলস। তারপরেই শুরু হয় তরুণের কেরামতি।

পাবজির নেশায় বাবার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে ১৬ লাখ টাকা খসিয়ে অনলাইনে গেমিংয়ের জন্য কিছু কিনেছিল ওই তরুণ। ভেবেছিল ধরা পড়বে না সে। তবে ব্যাঙ্কের মেসেজ পেতেই সজাগ হয়ে যায় তার বাবা। ওই ব্যক্তি বুঝতে পারেন এই কীর্তি তাঁর ছেলেরই।

তারপরই ঠিক করেন ছেলেকে উচিত শিক্ষা দিতেই হবে। এই বাজারে উপার্জন করা কতটা কষ্টকর এবং টাকার আসল মূল্য যে কী সেটাই ছেলে বোঝাতে চেয়েছেন এই বাবা। আর তাই একটা স্কুটার সারানোর দোকানে ছেলেকে কর্মচারী হিসেবে যুক্ত করেছেন ওই ব্যক্তি।

তাঁর কথায়, “আমার ছেলে অনলাইন গেম খেলতে গিয়ে নিজের এবং বন্ধুদের জন্য এত টাকা খরচ করেছে। এদিকে কোনও হেলদোল নেই। আমি কিছুতেই এটা মানতে পারব না যে ও এমন একটা কাণ্ড ঘটিয়ে বাড়িতে অলস বসে থাকবে। ওকে এখন ওর পড়াশোনার জন্যও ফোন দিতে চাই না। তাই ওকে স্কুটার সারানোর দোকানে কাজ করতে পাঠিয়েছি। এ বার ও বুঝুক উপার্জন করা কতটা পরিশ্রমের এবং টাকার মূল্য কী।”

যেহেতু ব্যক্তির ছেলেই এই কাণ্ড ঘটিয়েছে তাই হাত তুলে নিয়েছে পুলিশও। ওই ব্যক্তি জানিয়েছেন, তাঁর পিএফ অ্যাকাউন্টের ২ লাখ টাকাও ছিল ওই ১৬ লক্ষ টাকার মধ্যে। নিজের বাবা-মাকেও এখন টাকা পাঠাতে পারছেন না ওই ব্যক্তি। যার ফলে খুবই অসুবিধার মধ্যে পরেছেন তিনি।

শেয়ার করে ভারতীয় হওয়ার গর্ব করুন

আপনার মতামত জানান