শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পাশে রাজ্য সরকার, খোলা চিঠিতে উল্লেখ ব্রাত্যর

0
145

 

লড়াই ২৪ ডেস্ক: কলম ধরলেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। শিক্ষক দিবসের দিন লিখলেন খোলা চিঠি। তবে তা রাজ্যের সমস্ত শিক্ষক-শিক্ষিকার কাচেহ পৌঁছল মঙ্গলবার। চিঠির ছত্রে ছত্রে রয়েছে রাজ্যের শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পাশে দাঁড়ানোর বার্তা। প্রধান শিক্ষক শিক্ষিকাদের বলা হয়েছে সেই চিঠির কপি দিয়ে দেওয়ার জন্য। সেই চিঠির কপি সব শিক্ষক–শিক্ষিকাদের হাতে পৌঁছল কিনা তা নিয়ে একটি রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

অবশ্য এই চিঠি পাওয়ার পর অধিকাংশ শিক্ষক-শিক্ষিকার মত, ‘বেটার লেট দ্যন নেভার’। না পাওয়ার থেকে বিলম্বিত প্রাপ্তিই যথেষ্ট। চিঠিতে উল্লেখ আছে উৎসশ্রী-এর কথা। পাশপাশি রাজ্য সরকার যে সর্বদাই শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পাশে আছেন সে কথাও মনে করিয়ে দেওয়া হয়েছে এই খোলা চিঠি মাধ্যমে।

Read more………………………করোনায় বিধস্ত শিক্ষা ব্যবস্থা, অনলাইন ক্লাস থেকে বিরত গ্রামাঞ্চলের অধিকাংশ খুদে-পড়ুয়া

ঠিক কী লিখেছেন শিক্ষামন্ত্রী? তিনি লিখেছেন, “আপনারা জানেন যে পশ্চিমবঙ্গ সরকার গত ১০ বছর ধরে শিক্ষাক্ষেত্রে ক্রমবর্ধমান উন্নয়ন সাধন করেছে। ২৭০০ বিদ্যালয় মাধ্যমিক স্তর থেকে উচ্চমাধ্যমিক স্তরে উন্নীত হয়েছে। উচ্চমাধ্যমিক স্তরের ড্রপ আউট রেড ২০১১ সালের তুলনায় ১৭.৪৮ শতাংশ থেকে কমে ৭.৪% হয়েছে। ২০১১ সালের পর থেকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীর প্রতিমাসে নিয়মিত বেতন–ভাতা নিশ্চিত করা হয়েছে। চাকুরী সংক্রান্ত তথ্যাবলী কম্পিউটারাইজ করা হয়েছে। এই পোর্টালের মাধ্যমে তারা চাকুরী সংক্রান্ত বিভিন্ন পরিষেবা অনলাইনে পাচ্ছেন। শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অনলাইন পেনশন পদ্ধতি চালু করা হয়েছে। মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রী নিরন্তর অনুপ্রেরণা ও উপদেশ গত ৩১ জুলাই আপনাদের বদলির সুযোগ–সুবিধা প্রদানের জন্য অনলাইন বদলির পোর্টাল উৎসশ্রী চালু করা হয়েছে। আজ শিক্ষক দিবসের পূণ্য দিনে আপনাদের সকলের জন্য উৎসর্গকৃত এই পদক্ষেপকে সাফল্যমন্ডিত করার জন্য আপনাদের সকলের সাহায্য সহযোগিতা কামনা করছি। আমরা সর্বদা আপনাদের পাশে আছি।”

এবার প্রশ্ন হটাৎ এই চিঠি কেন? শিক্ষকমহলের একাংশের ধারণা মূলত শিক্ষিকাদের বিষপানের ঘটনাকে লঘু করতেই এই চিঠি। আবার কয়েকজনের বক্তব্য, মূলত শিক্ষামন্ত্রী হওয়ার পর শিক্ষকদের প্রতি সম্মান প্রদর্শন করলেন তিনি এই চিঠি মাধ্যমে। এটা অভিনব উদ্যোগ। ইতিমধ্যেই উৎসশ্রী পোর্টালের মাধ্যমে দুই হাজারেরও বেশি শিক্ষক বদলির সুযোগ পেয়েছেন। আরও প্রায় ৫০০০ শিক্ষক–শিক্ষিকাদের বদলির আবেদন বিবেচনাধীন রয়েছে স্কুল সার্ভিস কমিশনের কাছে। এই পোর্টাল মাধ্যমেই শিক্ষক-শিক্ষিকাদের পাশে আছে রাজ্য সরকার, চিঠিতে ফুটে উঠলো এমনই ব্রাত্যর বার্তা।

Advertisement
শেয়ার করে ভারতীয় হওয়ার গর্ব করুন

আপনার মতামত জানান