October 7, 2022

আজকাল বলিউড স্ত্রীদের অনবদ্য স্টাইল শোতে দেখা যাচ্ছে। তো চলুন আপনাকে বলি বলিউড স্ত্রীদের ব্যক্তিগত জীবনে কোন কোন প্রকাশ বি-টাউনে তোলপাড় সৃষ্টি করেছে।

বলিউডের স্ত্রীদের চমকপ্রদ প্রকাশের খবর:বলিউডে শুধু অভিনেতাদের ছবি নিয়ে কথা বলা সম্ভব নয়।কারণ বলিউডের ফ্যান জগতে চিত্রনাট্যের চেয়েও বেশি দর্শক তাদের প্রিয় অভিনেতাদের বাস্তব জীবনের বিষয়বস্তু দিয়ে বিনোদন দেয়।সম্ভবত এই কারণেই রিয়েলিটি শো এখন কল্পকাহিনীর চেয়ে হিট তালিকার শীর্ষে।একটা সময় ছিল যখন অভিনেতারা তাদের ব্যক্তিগত জীবন মিডিয়া বা ভক্তদের সামনে আনতে এড়িয়ে যেতেন।কিন্তু এখন তা নয়, এয়ারপোর্টে অভিনেতাদের দেখা থেকে শুরু করে বেডরুমের গসিপও শিরোনাম হচ্ছে।শুধু অভিনেতাই নয়, তাদের নন-ফিল্মি স্ত্রীরাও এখন তাদের স্টারডমের গুরুত্বপূর্ণ অংশ হয়ে উঠেছে।বলিউডের এই স্ত্রীদের জীবনও সেলিব্রেটির থেকে কম নয়।তাই বলিউডের স্ত্রীদের কল্পিত জীবননিয়ে অভিনেতাদের জীবনসঙ্গী এবং প্রাক্তন অংশীদাররালাইক শো অন এয়ার হচ্ছে।সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হল বলিউডের স্ত্রীরাও এই শোগুলিতে অনবদ্য স্টাইল দেখতে পাচ্ছেন।তো চলুন আপনাদের বলিবলিউডের স্ত্রীদেরব্যক্তিগত জীবনে কোন কোন প্রকাশ বি-টাউনে আতঙ্ক

 

সৃষ্টি করেছে।

অভিনেতা সঞ্জয় কাপুরের স্ত্রী মাহীপ কাপুর, যাকে বলিউডের স্ত্রীদের কল্পিত জীবনে দেখা যায়, একটি চমকপ্রদ প্রকাশ করেছেন।শোতে সীমা সাজদেহের সাথে কথোপকথনের সময় মহীপ কাপুর বলেছিলেন যে বিয়ের প্রথম দিনগুলিতে, সঞ্জয় কাপুরকে ছেড়ে যাওয়ার পথে ছিলেন কারণ তার স্বামী তাদের বিয়ের শুরুতে তাকে প্রতারণা করেছিল।শোতে সীমা সাজদেহের সাথে কথা বলার সময়, মহীপ তার 25 বছর বয়সী বিবাহের সাথে জড়িত একটি ঘটনার কথা স্মরণ করেছিলেন যখন তার বড় মেয়ে শানায়া কাপুর খুব ছোট ছিল, যখন সঞ্জয় তাকে প্রতারণা করেছিল।মহীপ বলেছিলেন যে তিনি শানায়ার সাথে চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন কিন্তু তারপরে তিনি সঞ্জয়কে একটি সুযোগ দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলেন।মহীপ বলেছিল যে তার সিদ্ধান্ত সঠিক ছিল, অন্যথায় সে সারাজীবন আফসোস করবে যে সে সঞ্জয়কে দ্বিতীয়বার সুযোগ দেয়নি।মহীপ আরও বলেছিল যে, সবার জীবনেই উত্থান-পতন থাকে, সবার জীবন যেরকম দেখায় তা নয়।

 

গৌরী খানকে কখনই আমন্ত্রণ জানাবেন না, তিনি

নিজেই আসেন।কারণ যখনই আপনি তাকে কোন কিছুর জন্য আমন্ত্রণ জানাবেন, তিনি বলবেন ওহ এটা খুব বিরক্তিকর।আপনি তাদের আমন্ত্রণ না করলে, তারা স্বয়ংক্রিয়ভাবে আসে। সঞ্জয় কাপুরের স্ত্রী মাহিপকাপুরের রিয়েলিটি শো-তে কষ্টের দিনগুলোর কথা মনে করে আরও একটি বড়ো প্রকাশ করলেন।মাহিপ বলেছিলেন যে কীভাবে বলিউডের সবচেয়ে বড় পরিবার কাপুর পরিবারের সদস্য হওয়া সত্ত্বেও তার জীবন সহজ ছিল না।তার কষ্টের দিনগুলোর কথা স্মরণ করে তিনি বলেন- ‘আমার চারপাশের লোকজন মাঝে মাঝে আমাকে অনুভব করত যে আমরা কাপুর পরিবারের একজন ব্যর্থ অংশ।’তিনি বলেছিলেন যে সঞ্জয় কাপুর যখন কাজ পাচ্ছেন না, তখন তাকে আর্থিক সংকটের মুখোমুখি হতে হয়েছিল।সেই খারাপ সময়েও প্রিয়জনরাও হাল ছেড়ে দিয়েছিলেন এবং দুঃখ-কষ্টে কটূক্তি শুনতে হয়েছিল।এই বিষয়ে আরও কথা বলতে গিয়ে মহীপ বলেছিলেন- ‘একটা সময় ছিল যখন সঞ্জয় বহু বছর ধরে কোনও কাজ ছাড়াই বাড়িতে বসে ছিলেন।টাকা খুব টাইট ছিল.আমার বাচ্চারা গ্ল্যামার এবং গ্লিটজের সাথে এটি দেখে বড় হয়েছে।’আরিয়ান খানের জেলে যাওয়া নিয়ে নীরবতা ভাঙলেন গৌরী

সম্প্রতি করণ জোহরের শো কফি উইথ করণে ছেলে আরিয়ানের গ্রেপ্তারের বিষয়ে প্রথম কথা বলেছেন গৌরী খান।আরিয়ানের গ্রেপ্তার প্রসঙ্গে তিনি বলেন- ‘হ্যাঁ, পরিবার হিসেবে আমরা সবাই সেই কঠিন সময় পার করেছি।একজন মা এবং একজন পিতামাতা হিসাবে আমাদের সাথে যা ঘটেছে তার চেয়ে খারাপ আর কিছুই হতে পারে না।কিন্তু আজ আমরা ভালো জায়গায় আছি।

 

সীমা সচদেব কেন 22 বছর পর সোহেল খানকে তালাক দিয়েছিলেন সে সম্পর্কে বলেছেন… সীমা সচদেব

, অভিনেতা সোহেল খানের প্রাক্তন স্ত্রী, যিনি বলিউডের ফ্যাবুলাস লাইভস অফ বলিউড ওয়াইভস-এর দ্বিতীয় সিজনে বলিউড থেকে নিখোঁজ হয়েছিলেন, তিনিও বিয়ে সম্পর্কে চমকপ্রদ প্রকাশ করেছেন।এই শোতে প্রতিযোগীদের সঙ্গে কথা বলতে আসা ম্যাচ মেকিং খ্যাত সীমা তাপারিয়ার সঙ্গে আলাপকালে সীমা সোহেলের সঙ্গে বিচ্ছেদের কথা বলেন।সীমা তাপারিয়া যখন সীমা সচদেবকে জিজ্ঞাসা করেন কেন সোহেল খানের সাথে তার 22 বছরের দীর্ঘ বিবাহ ভেঙে গেছে, তিনি বলেন যে তাদের মতামত মেলে না।সে তখন জিজ্ঞেস করে যে কেন তার 22 বছর লেগেছে তা জানতে, তাই সীমা প্রথমে একটু দুঃখ পায় এবং তারপর মজা করে বলে, ‘আমি সত্যিই মেয়েদের পছন্দ করি।’এই মন্তব্য শুনে খুশি নন সীমা তাপারিয়া।অন্যদিকে সীমা তাপারিয়াকে দেখে হাসতে শুরু করেন সীমা সচদেব।সে বলে যে সে আমার কৌতুক দেখে ভয় পায়।

 

মালাইকা অরোরা বলেন, আরবাজ সারা রাত এই কাজটি করতেন,

শুধু পর্দায় নয়, বলিউডের স্ত্রীরা অফস্ক্রিনেও অনেক সাক্ষাৎকারে তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কথা বলেছেন।আপনার মনে থাকতে পারে, মালাইকা অরোরা একবার তার প্রাক্তন স্বামী আরবাজ খানের বিবাহবিচ্ছেদের বিষয়ে পণ করার আসক্তি প্রকাশ করেছিলেন।অভিনেত্রী বলেছিলেন যে তারা একে অপরকে খুশি রাখতে পারেনি।অভিনেত্রী বলেন, আরবাজ খান বাজির নেশায় আসক্ত ছিলেন।এবং তিনি প্রতিবারই টাকা হারাতে থাকেন।মালাইকা বলেছিলেন- ‘অর্থের অভাবে সালমান খানের টাকার ওপর নির্ভর করতে হয়েছে, যা আমি চাইনি।সারারাত বন্ধ ঘরে ঝগড়া করতাম।কাঁদতে কাঁদতে কখন যে সকাল হয়ে গেল টেরই পেলাম না।প্রতি রাতে এই লড়াইয়ে সে বিরক্ত ছিল।এরপর দুজনেই পারস্পরিক সম্মতিতে আলাদা হওয়ার সিদ্ধান্ত নেন।

আপনার একটা শেয়ারে আপনারই লাভ!

আপনার মতামত জানান

%d bloggers like this: